এলজি’র ভাঁজকরা ডিসপ্লে প্যানেল তৈরিতে অ্যাপেল, গুগল ও মাইক্রোসফট যৌথ অংশীদার
এলজি’র ভাঁজকরা ডিসপ্লে প্যানেল তৈরিতে অ্যাপেল, গুগল ও মাইক্রোসফট যৌথ অংশীদার
আমরা এখন ভাঁজ করা স্মার্টফোনের জন্যে অপেক্ষা করছি। স্যামসাং হয়তো আমাদের সে প্রত্যাশাটি পূরণ করতে যাচ্ছে সবার আগে। তবে স্যামসাং শুধু একা নয়, এলজি-ও কাজ করে চলেছে এমন একটি ডিসপ্লে তৈরির জন্যে। এ ক্ষেত্রে তার সাথে যৌথভাবে অংশীদার হচ্ছে বিখ্যাত ডিভাইস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাপেল, গুগল ও মাইক্রোসফট।

এলজি’র ভাঁজকরা ডিসপ্লে প্যানেল তৈরিতে অ্যাপেল, গুগল ও মাইক্রোসফট যৌথ অংশীদার
এলজি’র ভাঁজকরা ডিসপ্লে প্যানেল তৈরিতে অ্যাপেল, গুগল ও মাইক্রোসফট যৌথ অংশীদার


দক্ষিণ কোরিয়া একটি প্রতিবেদন জানিয়েছে যে, এলজি এই বিশেষ ধরণের ডিসপ্লে প্রস্তুতের জন্যে অ্যাপেল, গুগল ও মাইক্রোসফটকে অংশী করেছে। তাদের স্মার্টফোন বিভাগ এই প্যানেল তৈরির লক্ষ্যে দায়িত্ব পালন করবে।

এলজি ভাঁজকরা ডিসপ্লে তৈরি করবে - এমন কথা এবারই যে আমরা প্রথম শুনলাম তা নয়। তারা এরই মধ্যে ভাঁজকরা ডিসপ্লের নমুনা তৈরিতেও সফল হয়েছে যদিও এখনো ব্যবসায়িক ভাবে প্রস্তুতির জন্যে ব্যাপক উৎপাদনে যায়নি। বিশ্লেষকদের মতে কাজটি সম্পন্ন করতে এলজি’র চেয়ে স্যামসাং এর অভিজ্ঞতা তুলনামূলক বেশি।

হাতে পাওয়া প্রতিবেদন থেকে এখন পর্যন্ত ভাঁজকরা ডিসপ্লের বিষয়ে খুব বেশি তথ্য জানা যায় না। জানা যায়নি যে, কখন আমরা এই ডিসপ্লে প্যানেলটি হাতে পেতে পারি। তবে ২০১৭ এ তে আসা আইফোনে ভাঁজ করা সম্ভব এমন ধরণের ওএলইডি সম্বলিত ডিসপ্লে যুক্ত হবে বলে একটা ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। হতে পারে সেটি প্রকৃত পক্ষে ভাঁজ করা ডিসপ্লে হবে না, হবে ‘বাঁকানো’ ধরনের ডিসপ্লে। কারণ গুজব শোনা গেছে যে, অ্যাপেলকে সরবরাহের জন্যে স্যামসাং এমন ধরণের ডিসপ্লে তৈরি করছে।
যাই হোক না কেন সত্যি মিথ্যা জানতে হলে আমাদের অপেক্ষা করতেই হবে।