সনি অবমুক্ত করলো এক্সপেরিয়া এক্সজেড ফ্যাগশীপ ও এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট
সনি অবমুক্ত করলো এক্সপেরিয়া এক্সজেড ফ্যাগশীপ ও এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট
এবারের আইএফএ ২০১৬ তে সনি দু’টি নতুন এক্সপেরিয়া ফোন অবমুক্ত করেছে। এর একটি হলো নতুন ফ্ল্যাগশীপ ফোন এক্সপেরিয়া এক্সজেড ও নতুন ভাবে ফিরে আসা এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট।

সনি এক্সপেরিয়া এক্সজেড প্রকৃত পক্ষে এক্সপেরিয়া এক্স এর একটি উত্তরসূরি। এই ফোনে আগের ফোনের চেয়ে উন্নততর প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এর ডিজাইন, কার্যকারিতা, ক্যামেরা ও ব্যাটারির দীর্ঘ স্থায়িত্ব নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের বিশেষ যত্নেরই প্রত্যক্ষ ফল। বিশেষ ডিজাইনে তৈরি এক্সপেরিয়া এক্সজেডে একটি বিশেষ নতুন রঙও সংযুক্ত করা হয়েছে। আর এ রঙটি হলো ফরেস্ট ব্লু বা বনানী নীল। যে নামী পদার্থে ফোনটি তৈরি হয়েছে তার নাম হলো আলকালেইডো। অ্যালুমিনিয়ামের টুকরাকে গোলাকৃতি দিয়ে তৈরি করা এ ধাতু স্পর্শানুভূতিতে দারুণ এক রোমাঞ্চ সৃষ্টি করে। সেই সাথে তা মরিচাপ্রতিরোধকারী।

সনি অবমুক্ত করলো এক্সপেরিয়া এক্সজেড
সনি অবমুক্ত করলো এক্সপেরিয়া এক্সজেড


এক্সপেরিয়া এক্সজেডে সনি তুলনামূলক বড় ৫.২ ইঞ্চি আকারের আইপিএস ডিসপ্লে যুক্ত করেছে। অবশ্য সেই ডিসপ্লেতে আছে আগের মতো ১০৮০ পিক্সেল রেজ্যুলুশন। অথচ এক্সপেরিয়া এক্সজেড একটি ফ্ল্যাগশীপ ফোন। এতে আরো আছে স্ন্যাপড্রাগন ৮২০ চিপ, ৩ জিবি র‌্যাম, টপ-নক সংযোগ সুবিধাসমূহ, স্টেরিও স্পিকার এবং ৩২ জিবি সংরক্ষণ ক্ষমতা যাকে মাইক্রোএসডি কার্ডের সাহায্যে ২০০ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

এর প্রধান ক্যামেরায় আছে ২৩ মেগাপিক্সেল সেন্সর যার লেন্স এফ/২.০। বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে একে নতুন কিছু মনে না হলেও সনি এক্সজেড ও এক্স কমপ্যাক্টের জন্যে একটি নতুন আইএমএক্স৩০০ সেন্সর তৈরি করেছে। এটি হলো একটি নতুন অটোফোকাস সিস্টেম। এর সেটআপকে বলা হয় ট্রিপল ইমেজ সেন্সিং যা ছবি ও ভিডিওতে যথার্থ ফোকাস ব্যবহারে সহায়তা করে। অবশ্য এই বিশেষ ক্যামেরায় অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন নেই। কারণ সনি এখনও এই বৈশিষ্ট্যটিকে নিজের বলে গ্রহন করেনি।

এক্সজেডে আছে একটি ২,৯০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারআওয়ার ব্যাটারি। এ ক্ষেত্রে পূর্বসূরির চেয়ে পানিরোধী এই ডিভাইসটির উন্নতি খুব কমই হয়েছে। তবে ব্যাটারিটিতে আছে কুইক চার্জ ৩.০ বৈশিষ্ট্য যদিও আমরা নিশ্চিত নই যে এই হ্যান্ডসেটটির সাথে কুইক চার্জার দেয়া হবে কি না। সনির দাবী এই ব্যাটারি আগের ব্যাটারির চেয়ে দ্বিগুন পরিমাণ বেশী সেবা দিবে।

এক্সপেরিয়া এক্সজেড অক্টোবরের শুরুতে বাজারে আসবে। এটি পাওয়া যাবে খনিজ কালো, বনানী নীল ও প্লাটিনামের রঙে। আর এ ফোনটির মূল্য হতে পারে ৭০০ ইউরো। অবশ্য মূল্যের বিষয়টি এই মূহুর্তে কেবলই ধারণামাত্র।

সনি এক্সপেরিয়া এক্স কম্প্যাক্ট এ এক্সপেরিয়া এক্সজেড এর কিছু বৈশিষ্ট্য থাকতে পারে। তবে এটি কখনোই বড় ফ্ল্যাগশীপ ফোনটির ক্ষুদ্র সংষ্করণ নয়। নামেই এর গুনাগুন বলা আছে। এটি হলো এক্সপেরিয়া এক্স এর একটি সামগ্রিক রূপ। এতে থাকবে স্ন্যাপড্রাগন ৬৫০ চিপসেট ও ৩ জিবি র‌্যাম।

সনি এর এক্স কমপ্যাক্ট ফোনের জন্যে এক্সপেরিয়া এক্সজেড এর ডিজাইন অনুসরণ করেছে। ফলে ছোট ফোনটি দেখতে অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়েছে।

সনি অবমুক্ত করলো এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট
সনি অবমুক্ত করলো এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট


সনির দেয়া তথ্য মতে এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট এর আবরণ তৈরিতে প্লাস্টিকের ব্যবহার করা হয়েছে যদিও তা দেখতে সিরামিকের মতো। এতে অবশ্য লাভ হয়েছে একটি, ফোনটি এখন তুলনামূলক অনেক হালকা।

এক্সপেরিয়া এক্স কমপ্যাক্ট যে শুধুমাত্র ফ্ল্যাগশীপ এক্সপেরিয়া এক্সজেডের ডিজাইন অনুসরণ করেছে তা নয়। এক্সজেডের মতো ক্যামেরাও আমরা পাবো এই ফোনে।

সনি তাদের এ ফোনটিকে এক্সপেরিয়া এক্স পারফরমেন্স ও এক্সপেরিয়া এক্স এর মাঝামাঝি স্থানে রাখবে। তাই ধারণা করা হয় যে, ফোনটির মূল্য হবে ৫০০ ইউরো। আগামী সপ্তাহে এক্স কমপ্যাক্ট ফোনটিকে আমরা ইউনিভার্স ব্ল্যাক, মিস্ট ব্লু ও সাদা রঙে বাজারে পাবো।